Home » অপরাধ » ৭০ টাকা চুরির অভিযোগে দুই ছাত্রীকে নগ্ন করে তল্লাশি

৭০ টাকা চুরির অভিযোগে দুই ছাত্রীকে নগ্ন করে তল্লাশি

মাত্র ৭০ টাকা চুরির অভিযোগে স্কুলের মধ্যেই দুই ছাত্রীকে নগ্ন করে তল্লাশি করা হলো। এ খবরটি প্রকাশ্যে আসার পরই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।

এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপাল থেকে ২৫০ কিলোমিটার দূরে দামোহ-র রাণী দুর্গাবতী নামে একটি সরকারি স্কুলে।জানা গিয়েছে, গত শুক্রবার স্কুল চলাকালীন হঠাৎ এক ছাত্রী ক্লাসে উপস্থিত শিক্ষিকা জ্যোতি গুপ্তকে জানায়, তার ব্যাগে রাখা ৭০ টাকা সে খুঁজে পাচ্ছে না জানায়। তখনই তিনি ওই দুই ছাত্রীর ব্যাগে তল্লাশি নেন। এরপর তান্ত্রিক ডেকে আনার ভয়ও দেখান। এরপরই তিনি নগ্ন করে তল্লাশির নির্দেশ দেন। সেই মতো নগ্ন করা হয় দুই ছাত্রীকেই। তবুও সেই টাকা খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এ প্রসঙ্গে নির্যাতিতা এক ছাত্রী জানায়, ‘আমরা যে কোনও টাকা চুরি করিনি, সেকথা জানালেও আমাদের কোনও কথা শোনা হয়নি। এমনকী প্রয়োজনে তান্ত্রিক ডাকার ব্যাপারেও আমরা রাজি হয়ে যাই।এরপরই তিনি অন্যান্য বন্ধুদের সামনেই আমাদের নগ্ন করে তল্লাশি নেন।

এর পরই বাড়ি ফিরে পরিবারের লোকজনদের পুরো ঘটনার কথা জানায় ওই ছাত্রীরা। ব্যাপারটি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকেও জানানো হয়। পরে খবর পেয়ে অভিযুক্ত শিক্ষিকাকে শো-কজের নোটিশ পাঠান জেলার শিক্ষা কর্মকর্তা পিপি সিং।

এ ব্যাপারে পিপি সিং বলেন, ‘ঘটনার তদন্ত চলছে। দোষী সাব্যস্ত হলে ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জোর করে অন্য কাউকে নগ্ন করার অধিকার কারোর নেই। ’

যদিও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত শিক্ষিকা। তিনি জানান, ‘গোটা ক্লাস ওই সময় মাঠে ছিল জুডো-ক্যারাটে অনুশীলনের জন্য। আমিও উপস্থিত ছিলাম। কিন্তু ওই দুজন সেখানে ছিল না। ’

তিনি আরো বলেন, ‘যে মেয়েটির টাকা চুরি হয়েছে সে আমার কাছে এসে অভিযোগ জানায়। তখন আমি ওই দুজনের ব্যাগের তল্লাশি নেওয়ার কথা বলি। কিন্তু ক্লাসে গিয়ে সে দুজনকে নগ্ন হতে বলি। এই কথাটি আমি বলিনি। ১৭ বছর ধরে শিক্ষিকার চাকরি করছি। কেন একথা বলতে যাব?